যশোরে আবাসিক হোটেলে নারী পুলিশসহ এমপির ছেলে ধরা খেয়েছেন।

যশোরে আবাসিক হোটেলে নারী পুলিশসহ এমপির ছেলে ধরা

যশোরে আবাসিক হোটেলে নারী পুলিশসহ এমপির ছেলে ধরা খেয়েছেন।

স্টাফ রিপোর্টার,যশোর, অভয়নগরবার্তাঃ

যশোর শহরের একটি অভিজাত আবাসিক হোটেল থেকে নারী এএসআইসহ ধরা খেয়েছেন যশোর-৫ (মণিরামপুর) আসনের সংসদ সদস্য স্বপন ভট্টাচার্য্যরে ছেলে সুপ্রিয় ভট্টাচার্য্য শুভ। পুলিশ এ বিষয়ে পরিস্কার কোন তথ্য দিচ্ছে না, তবে ঘটনাটি অস্বীকারও করছে না। অবশ্য হোটেল কর্তৃপক্ষ আটকের ব্যাপারটি নিশ্চিত করেছেন।যশোরে আবাসিক হোটেলে নারী পুলিশসহ এমপির ছেলে ধরা

আটক এএসআই সাবরিন সুলতানা যশোরের মণিরামপুর থানায় কর্মরত। শহরের হাটখোলা রোডের অভিজাত হোটেল সিটি প্লাজা’র জেনারেল ম্যানেজার শেখ সাইফুল ইসলাম জানান, সোমবার দুপুর একটার কিছু সময় পর এমপিপুত্র শুভ’র বন্ধু শহরের টিবি ক্লিনিক এলাকার বাসিন্দা তুষার তাদের হোটেলে গিয়ে কোম্পানির অফিসার আসবে জানিয়ে হোটেলের একটি কক্ষ ভাড়া নেন। কিছুসময় পর শুভ হোটেলের ভাড়া করা ৫১৪ নম্বর কক্ষে ওঠেন। এর পরপর কক্ষটিতে যান মণিরামপুর থানার এএসআই সাবরিন। হোটেল কক্ষে নারীকে ঢুকতে দেখে ওই কক্ষে ফোন করা হলে শুভ ওই নারীকে মণিরামপুর থানার পুলিশ কর্মকর্তা ‘নিঝুম ভট্টাচার্য্য’ হিসেবে পরিচয় দেন।

হোটেল ম্যানেজার সাইফুল ইসলাম আরও বলেন, পুলিশের নির্দেশনা অনুযায়ী হোটেলকক্ষে নারী থাকার বিষয়টি কোতয়ালী থানায় অবহিত করা হলে কোতয়ালী থানার ইনস্পেক্টর (অপারেশন) শামসুদ্দোহা কক্ষটি থেকে শুভ ও সাবরিনকে ধরে নিয়ে যান।

তবে ইনসপেক্টর শামসুদ্দোহা হোটেল সিটি প্লাজা থেকে কাউকে আটকের কথা স্বীকার করেননি।

এদিকে মণিরামপুর থানার ওসি মোকাররম হোসেন জানান, এএসআই সাবরিন পাসপোর্ট করতে যাবার কথা বলে বেলা ১২টার দিকে থানা থেকে সিসি নিয়ে যশোর যান। কোতয়ালী পুলিশ তাকে ও সাংসদপুত্রকে আবাসিক হোটেল থেকে ধরে এনেছে বলে শুনেছেন।

যশোরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. সালাহউদ্দিন শিকদার বলেন, একজন নারী পুলিশ কর্মকর্তা অফিস অর্ডার ছাড়া হোটেল সিটি প্লাজায় গিয়েছিলেন। সেকারণে ওই অফিসারকে পুলিশ লাইনে এনে কী কারণে তিনি সেখানে গিয়েছিলেন তা খোঁজ নেয়া হচ্ছে। তবে এমপির ছেলে শুভকে আটক করা হয়েছে কি-না সেটা এখনও নিশ্চিত নন।

এদিকে এমপি পত্নী তন্দ্রা ভট্টাচার্য্য সংবাদিকদের বলেন, তার ছেলে শুভ বাড়িতেই আছে। আর ওই পুলিশ সদস্য পুলিশ হেফাজতে রয়েছে।

Leave a Reply