ধর্ষণের আসামির পায়ে পড়লেন অবসরপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি।

ধর্ষণের
ধর্ষণের আসামির পায়ে পড়লেন অবসরপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি।
অনলাইন সংবাদ,অভয়নগরার্তাঃ
নাবালিকাকে ধর্ষণের মামলায় গত ৪ বছর ধরে কারাগারে। কারাগার থেকে নিয়মিত হাজিরা দিতে হচ্ছে তাকে। কিন্তু সেই অভিযুক্ত ব্যক্তি এখন অবসর নেয়া এক প্রধান বিচারপতির কাছে ‘গডম্যান’!ধর্ষণের
সবার সামনে সেই স্বঘোষিত ‘গডম্যান’ আসারামের পায়ে মাথা শনিবার ছোঁয়ালেন সিকিম হাইকোর্টের অবসরপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি সুন্দর নাথ ভার্গব। রাজস্থানের জোধপুর আদালতে আসারামের ঢোকার সময় ভার্গবকে আসারামের পায়ে পড়তে দেখে অবসরপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতির দুই নিরাপত্তারক্ষীও প্রণাম ঠুকে দেন ‘গডম্যান’কে।
শনিবার সকালে জেল থেকে পুলিশের গাড়িতে চড়ে আসারামকে নিয়ে যাওয়া হয় জোধপুর আদালতে। পুলিশের গাড়ি থেকে নামতেই সবাই চমকে দিয়ে আসারামের পায়ে পড়ে যান ভার্গব। অবস্থা দেখে হকচকিয়ে যান আসারামের সঙ্গে থাকা পুলিশ কর্মীরাও।
পরে তিনি বলেন, ‘‘আমি একটা পারিবারিক অনুষ্ঠানে যোগ দিতে এসেছিলাম জোধপুরে। এসে শুনলাম, আজ আসারাম কোর্টে আসবেন হাজিরা দিতে। সঙ্গে সঙ্গে ছুটে আসি ওর দর্শনে।’’
নাবালিকাকে ধর্ষণের অভিযোগে গত ৪ বছর ধরে জেলে থাকতে থাকতে আর কোর্টে হাজিরা দিতে দিতে জেরবার স্বঘোষিত ‘গডম্যান’ আসারাম এই অপ্রত্যাশিত ‘সম্মান’ পেয়ে রীতিমতো আপ্লুত হয়ে যান।
শুনানির পর কোর্ট থেকে আবার জেলে ফিরে যাওয়ার পথে পুলিশের গাড়িতে ওঠার আগে ‘গডম্যান’ বলেন, ‘‘বিচারপতি ভার্গব আমার পুরনো ভক্তদের একজন। উনি আমাকে অনেক দিন ধরে চেনেন, জানেন। উনি আমার দর্শন চেয়েছিলেন। তাই এসেছিলেন এখানে। বিচারপতি মহলে আমার ভালো চেনাজানা আছে। তাই আমার মামলার পরিণতি ভালই হবে।’’
‘প্রেতাত্মার হাত’ থেকে বাঁচাতে গিয়ে ১৬ বছরের এক শিষ্যাকে ধর্ষণের অভিযোগে ২০১৩ সালের সেপ্টেম্বরে আসারামকে গ্রেফতার করে পুলিশ। ওই বছরেরই ডিসেম্বরে ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার হন আসারাম-পুত্র নারায়ণ সাই।

Leave a Reply