জেলখানা আরাম-আয়েশের জায়গা, আমিও ছিলাম: ওবায়দুল কাদের।

জেলখানা আরাম-আয়েশের জায়গা, আমিও ছিলাম
                                                জেলখানা আরাম-আয়েশের জায়গা, আমিও ছিলাম: ওবায়দুল কাদের।

ঢাকা প্রতিনিধি,অভয়নগরবার্তাঃজেলখানা আরাম-আয়েশের জায়গা, আমিও ছিলাম

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, জেলখানা আরাম-আয়েশের জায়গা। আমিও ছিলাম। ওয়ান ইলেভেনের আগে এবং পরেও ছিলাম।”

শুক্রবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জের শিমরাইলে দ্বিতীয় কাচপুর সেতুর সুপার স্ট্রাকচার উদ্বোধন শেষে বিএনপি চেয়ারপারসনের কারাবাস নিয়ে সাংবাদিকদের কথায় নিজের কারাবাসের কথা বলেন ওবায়দুল কাদের।

খালেদা জিয়াকে উদ্দেশ্য করে ওবায়দুল কাদের বলেন, আপনি বাইরে নানান ঝুটঝামেলায় থাকেন, কারাগারে তো একটু শান্তি ও স্বস্তিতে থাকার জায়গা। আপনি যেখানে আছেন, আমিও সেই জেলে ছিলাম, ওয়ান ইলেভেনের আগে এবং পরেও ছিলাম।”

কাদের বলেন, ‘নাজিম উদ্দিন রোডের কারাগারে ১০ হাজার লোক থাকতো। সেখানে এখন সামান্য কিছু লোক আছে। একটা নিরিবিলি পরিবেশ আছে। বেগম জিয়া গান শুনতে পাবেন, বই পড়তে পারবেন, কারাগারে যা হয়। প্রচুর বই আছে ঢাকা জেলে। কিছুদিন তার আরামদায়ক বিশ্রামেরও সুযোগ হয়েছে। এরপর আদালত তার ব্যাপারে কী সিদ্ধান্ত নেবেন এটা আদালতের ব্যাপার। তারপরও কেন নির্জন নির্জন বলছেন, এটা কি নেলসন ম্যান্ডেলার রোবেন আইল্যান্ড!’

তিনি বলেন, ‘কারাগারে ডিভিশন পাওয়া প্রিজনাররা যেভাবে থাকেন, বেগম জিয়ার জন্য সেই মর্যাদায় থাকা ও খাওয়া-দাওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে। এমনকি নিজের গৃহকর্মীকেও তিনি সঙ্গে নিয়ে আছেন, যেটা এদেশে নজিরবিহীন ঘটনা। সেই সুযোগটাও তিনি পাচ্ছেন। এই সুযোগ বাংলাদেশের কেউ পায়নি। কাজেই আর কী চান? তিনি (খালেদা জিয়া) যে রুমে থাকেন সেই রুমটা গিয়ে দেখে আসুন। এটা জেল সুপারের রুম, অনেক সুন্দর রুম। এ রুম যদি পরিত্যক্ত হয় সে হিসেবে তো ঢাকা জেলই পরিত্যক্ত।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘খালেদা জিয়াকে তো নেলসন ম্যান্ডেলার মতো রোবেন দ্বীপে পাঠানো হয়নি। কারাগারে জনাকীর্ণ পরিবেশ তার জন্য কী করে রাখবো। কারাগার চলবে জেলকোড অনুযায়ী। এখানে তার জন্য বিশাল জনতার সমাবেশ বা কারাগারের মধ্যে সরব অবস্থা তো করতে পারবো না। কারাগার তো নির্জন। তিনি (খালেদা জিয়া ) বাইরে নানান ঝুট-ঝামেলায় থাকেন। কারাগারে শান্তি। এটি স্বস্তিতে থাকার জায়গা। এই কথা বলতে পারি কারণ ওয়ান ইলেভেনের আগে ও পরে আমিও জেলে ছিলাম।’

তিনি আরও বলেন, ‘বিএনপির ডাকে জনগণ সাড়া দিচ্ছে না, আন্দোলনে যেতে পারছে না। নিজেরাই দুই একজন কান্নাকাটি করছে মিডিয়ার সামনে। পাবলিক কোথাও কেদেঁছে এটা আমাদের জানা নেই। কাজেই জনগণের সহানুভূতি অর্জনের জন্য বিএনপি নেতারা বারবার নির্জন কারাগারের কথা বলে বেড়াচ্ছেন। এটা কিন্তু ঠিক নয়।’

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘দুর্নীতি মামলায় সাজা ও বেগম জিয়া কারাবন্দি হওয়ার পর বিএনপি কর্মসূচি দিয়েছে। কিন্তু, জনগণ যে তাদের ডাকে সাড়া দেবে না, তারা নিজেরাও এটা ভাবতে পারেননি। আর এখানেই দলটি ভুল করেছে। এখন নিজেদের অক্ষমতার অজুহাতকে শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি বলে প্রচার করছে।’

Leave a Reply